Friday , May 29 2020
Home / Bangladesh / নিউইয়র্কে স্বাধীন জনগণতান্ত্রিক পূর্ববাংলা ঘোষণা দিবস পালিত
ad
নিউইয়র্কে স্বাধীন জনগণতান্ত্রিক পূর্ববাংলা ঘোষণা দিবস পালিত
statue of liberty

নিউইয়র্কে স্বাধীন জনগণতান্ত্রিক পূর্ববাংলা ঘোষণা দিবস পালিত

১৯৭০ সনের ২২ ফেবধুয়ারী ইতিহাসের বাতিঘর
নিউইয়র্ক (ইউএনএ): ১৯৭০ সনের ২২ ফেবধুয়ারী স্বাধীন জনগণ পূর্ববাংলা ঘোষনা দিবস’ পালন উপলক্ষে নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে প্রবাসী বাংলাদেশী সমাজের উদ্যোগে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সদস ̈ সচিব মোহাম্মদ হোসেন খান।অনুষ্ঠানে কিনোট ̄স্পীকার হিসেবে ̄স্মৃতিচারণমুলক ব৩বে ̈ তৎকালীন বিপ্লবী ছাত্র ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক আতিকুর রহমান সালু ̄স্বাধীন জনগণতান্তিক পূর্ব বাংলা প্রতিষ্ঠার পটভূমি বর্ণনা করে বলেন, ১৯৭০ সালের ২২ ফেবধুয়ারী হচ্ছে ইতিহাসের বাতিঘর, যা অনেক র৩ের দামে অর্জিত ̄স্বাধীনতা রক্ষায় পথ চলতে সাহায ̈ করবে।
সভায় আরও ব৩ব ̈ রাখেন বিশিষ্ট সাংবাদিক মঈনুদ্দীন নাসের, সাবেক ছাত্র নেতা লুৎফর রহমান হেলাল, অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন প্রমূখ। উল্লেখ ̈, আতিকুর রহমান সালু পরবর্তীকালে বিপ্লবী ছাত্র ইউনিয়নের পর্যায়μমে সাধারণ সম্পাদক (১৯৭০-১৯৭১) ও সভাপতি (১৯৭২-১৯৭৩) ছিলেন। খবর ইউএনএ’র।
সভায় বক্তারা বলেন, মূলত: ১৯৪৭ সালের পর থেকেই বায়ান্নর ভাষা আন্দোলনের পথ ধরে ১৯৭১-এর বাংলাদেশ ̄স্বাধীনতা লাভ করে। আর দেশের ̄স্বাধীনতার আন্দোলনের নেপথে ̈র মূল রূপকার মজলুম জননেতা মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী। তিনিই সর্বপ্রথম ‘আসসালামু আলাইকুম’ বলে ̄স্বায়াত্তশাসনের কথা বলেন, ̄স্বাধীনতার কথা বলেন। বক্তারা বলেন, বাংলাদেশের ̄স্বাধীনতার প্রকৃত ইতিহাস রচনা করতে হবে। নতুন প্রজন্মের কাছে প্রকৃত বাংলাদেশকে তুলে ধরতে হবে। বক্তরা বলেন, ভাষা আন্দোলন, ৬৯-এর গণ আন্দোলন আর ৭০-এর ছাত্র-গণ আন্দোলনের ভিত্তিতেই ৭১-এর মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ ̈দিয়ে আমাদের ̄স্বাধীন বাংলাদেশ। যেকোন মূলে ̈বাংলাদেশের ̄স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষা করতে হবে।
উল্লেখ ̈, ১৯৭০ সনের ২২ ফেবধুয়ারী তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান ছাত্র ইউনিয়ন আয়োজিত ঐতিহাসিক পল্টনময়দানে লক্ষাধিক লোকের জনসভায় ছাত্র সমাজের পক্ষ থেকে সর্বপ্রথম ̄স্বাধীন জনগণতান্ত্রিক পূর্ব বাংলা প্রতিষ্ঠার কর্মসূচি ও প্র ̄স্তাব তুলে ধরা হয়। পূর্ব সিদ্ধান্ত মোতাবেক সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে আতিকুর রহমান সালুএই প্র ̄স্তাব পাঠ করেন। উক্তসভায় সভাপতিত্ব করেন ১১ দফা ছাত্র আন্দোলনের অন ̈তম নেতা মো ̄স্তাফা জামাল হায়দার এবং সভা পরিচালনা করেন
সংগঠনের তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল্লাহ। সেই সভায় মূল বক্তব্য ̈ পেশ করেন প্রয়াত জননেতা ও তৎকালীন শ্রমিক নেতা কাজী জাফর আহমদ (মরহুম সাবেক প্রধানমন্ত্রী) এবং ডাকসুর সাবেক সহ সভাপতি রাশেদ খান মেনন (সাবেক মন্ত্রী)। তৎকালীন সামরিক জান্তা এই দুজনের নামে হুলিয়া জারী করে এবং ৭ বছর করে কারাদন্ড প্রদান করে। এছাড়াও মো ̄স্তাফা জামাল হায়দার ও মাহবুব উল্লাহকে ১ বছর করে সশ্রম কারাদন্ড দেয়া হয়। আতিকুর রহমান সালুর নামেও ওয়ারেন্ট বের হয়।
বার্তা প্রেরক, সালাহউদ্দিন আহমেদ, ইউএনএ, নিউইয়র্ক।

adadad