জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির কারণে জনগণের দু:খ দুর্দশার অন্ত নেই

2021-11-13, 10:47pm সংগঠন সংবাদ

255654001_1048525745931251_7681195460167597510_n-691682ab1dfbf2299b4343fe08dc60481636822058.jpg

Islami Andolan demonstration against fuel price hike on Saturday.

বিক্ষোভ সমাবেশে অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ বলেছেন, জ্বালানি তেলের অযৌক্তিক মূল্যবৃদ্ধির ফলে জনগণের দু:খ দুর্দশার অন্ত নেই। দেশের মেহনতি ও খেটে খাওয়া মানুষ অত্যন্তÍ মানবেতর জীবন যাপন করছে। জনগণের সাথে সরকারের কোন সম্পর্ক নেই। ফলে জনগণের কষ্ট তাদের কিছু যায় আসে না। বরিশালের বাকেরগঞ্জে ইমামের হাতকাটার প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, এর সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।

আজ শনিবার বাদ জোহর রাজধানীর বায়তুল মোকাররম উত্তর গেটে জ্বালানি তেলের অযৌক্তিক মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল, যানবাহনের বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহার এবং দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি রোধের দাবিতে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সংগঠনের ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলমের সভাপতিত্বে এবং জয়েন্ট সেক্রেটারী ডা. শহিদুল ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান, ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ, মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম, মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাকী, দক্ষিণ সহ-সভাপতি আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন, উত্তর সহ-সভাপতি আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন, যুবনেতা ইলিয়াস হাসান, নূরুল ইসলাম নাঈম, ইঞ্জিনিয়ার মুরাদ হোসেন, শেখ মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, যুবনেতা শফিকুল ইসলাম, সাব্বির আহমদ প্রমুখ।

সংক্ষিপ্ত সমাবেশশেষে একটি বিরাট মিছিল বায়তুল মোকররম উত্তর গেট, পল্টন মোড়, বিজয়নগর নাইটেঙ্গলে পৌঁছলে  পুলিশ মিছিলের গতি রোধ করতে কাটাতারের ব্যারিকেট তৈরি করলে সেখানেই মিছিলের সমাপ্তি ঘটে। প্রচন্ড বৈরী আবহাওয়ার মধ্যেও বিক্ষুব্ধ জনতা মিছিলে অংশ নেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাওলানা ইউনুছ আহমাদ বলেন, আওয়ামীলীগের জনসমর্থন এখন তলানীতে। সরকার নির্বাচনকে ভয় পায়। সরকার উন্নয়নের কথা বলে, উন্নয়নের কারণে জনগণের আহাজারি শুনতে পায় না। তিনি বলেন, সরকারের উন্নয়ন হয়েছে কিভাবে মানুষের ভোটধিকার কেড়ে নেয়া যায়। গভীররাতে ভোট ডাকাতির মাধ্যমে ক্ষমতায় টিকে থাকার উন্নয়ন। তিনি আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনি মাস্তান শুমারী, দুর্নীতিবাজদের শুমারী এবং ইসলামবিদ্বেষীদের শুমারী করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন। অন্যথায় জনগণের রুদ্ররোষে করুণ পরিণতি বরণ করতে হবে।

অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জসহ সারাদেশে সরকার দলীয় এমপি ও নেতাদের হুমকি- নির্বাচন বয়কট করতে বাধ্য হবো। তিনি আরো বলেন, চোর কখনো সামনে আসে না। চোরেরা জনগণের সামনে  আসতে ভয় পায়।

অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ বলেন, জনগণের উপর জুলুম নির্যাতনে করে নিজেদের পকেট ভারী করার জন্য গভীররাতে জ্বালানি তেলের দাম বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, নির্বাচনের নামে তামাশা বন্ধ করতে হবে। নির্বাচনী সহিংসতায় অসংখ্য মানুষের প্রাণ কেড়ে নেয়ার ফল ভাল হবে না। তিনি সরকার দলীয় মাস্তানদের উদ্দেশ্যে বলেন, সাহস থাকলে প্রশাসন এবং অস্র ছাড়া মাঠে এসে দেখুন, জনগণ কিরূপ আচরণ করে আপনারা জনরোষে পালাতে বাধ্য হবে।

সভাপতির বক্তব্যে মাওলানা ইমতিয়াজ আলম বলেন, কথাবার্তা পরিস্কার, জনগণের স্বার্থবিরোধী জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল করতে হবে। দ্রব্যমূল্যের উধ্বর্গতি রোধ করে জনগণের ক্রয়সীমার মধ্যে রাখতে হবে এবং যানবাহনের ভাড়াবৃদ্ধির অমানবিক সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করতে হবে। তিনি বলেন, জনগণের দু:খ-দুর্দশা বুঝার জ্ঞান নেই আওয়ামীলীগ নেতাদের। তিনি বলেন, জনগণের ভাষা বুঝতে ব্যর্থ হয়েছে ভোট ডাকাতির সরকার কৃষকের পেটে লাথি মেরেছে।

বার্তা প্রেরক - শেখ মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, প্রচার ও দাওয়াহ বিষয়ক সম্পাদক, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ, ০১৭৯৯-০৮৯৫৩২